বাংলা উপন্যাস ও তার রচয়িতা তালিকা

বাংলা উপন্যাস ও তার রচয়িতা তালিকা: বাংলা উপন্যাস লেখা শুরু হয়েছে ঊনবিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগে; তবে তা দ্রুত বাংলা সাহিত্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ আঙ্গিকে পরিণত হয়েছে। একজন অবাঙালি লিখিত এবং ১৮৫২ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত ফুল মণি করুণার বিবরণ নামীয় গ্রন্থটিকে বাংলা ভাষার প্রথম উপন্যাসোম রচনা হিসাবে গণ্য করা হয়। ১৮৫৮ খ্রিষ্টাব্দে প্রকাশিত প্যারীচাঁদ মিত্রের লেখা আলালের ঘরের দুলাল নামীয় আখ্যানে উপন্যাসের বৈশিষ্ট্যাবলী সুচিহ্নিত হয়েছিল। ইয়োরোপীয় ধারার অনুকরণে লিখিত বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত এবং ১৮৬৫ সালে প্রকাশিত দুর্গেশনন্দিনী বাংলা ভাষায় উপন্যাসের প্রথম প্রামাণিক উদাহরণ।

সংগঠন ও কাহিনীর বিবেচনায় বিংশ শতাব্দীর প্রথমাংশেই বাংলা উপন্যাস পরিপক্কতা অর্জন করেছিল। পরবর্তীকালে তা বিচিত্র ও বর্ণিল সংগঠন ও কাহিনী অবলম্বন করে এবং লাভ করে আন্তজার্তিক মাত্রা। এ সব রচনায় ইয়োরোপীয় ও মার্কিন প্রভাব, বিশেষ করে ইংরেজী উপন্যাসের প্রভাব, পরিলক্ষিত হলেও দেশীয় প্রেক্ষাপটের অবলম্বনের প্রচেষ্টাও ছিল উল্লেখ করবার মতো। তবে বিংশ শতাব্দীর শেষভাবে আবির্ভূত হুমায়ূন আহমেদের হাতে বাংলা উপন্যাস সকল বিদেশী প্রভাব কাটিয়ে আঙ্গিকে, ভাষায় ও বিষয়ে — সব দিকে দিয়ে স্বাবলম্বী ও শিল্পোত্তীর্ণ হয়ে ওঠে। ফলস্বরূপ বিংশ শতাব্দীর শেষ ভাগে বাংলা গল্পের চেয়ে বাংলা উপন্যাস পাঠকের কাছে জনপ্রিয়তর হয়ে ওঠে।

বাংলা উপন্যাস বাংলা সাহিত্যের নতুনতম অঙ্গ। আনন্দ সংকর এবং লিলা রায় উল্লেখ করেছেন যে, ‘১৯ শতকের মাঝামাঝি সময় যখন প্রথম উপন্যাস লেখা হয়, এটি আমাদের জন্য নতুন ছিল, এটি লেখার ধরন আমাদের জন্য নতুন ছিল, এটি ভাষার ব্যবহার এবং যে সমাজ ও তার সদস্যদের জন্য লেখা হয়েছিল তারাও নতুন ছিল’ (পৃষ্ঠা ১৬৮)। কিন্তু বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়, তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়, শরত্চন্দ্র চট্টোপাধ্যায় এর মত শক্তিমান লেখকদের অবিরল অবদানের ফলে বাংলা সাহিত্যের এই নতুন সৃষ্ট ধারাটি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ‘নতুন’ থেকে ‘পরিপক্কতা’ অর্জন করে।

বাংলা উপন্যাসের সূত্রপাত ঊনবিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ে। প্যারীচাঁদ মিত্রের আলালের ঘরের দুলাল প্রকাশিত হয় ১৮৫৮ খ্রিষ্টাব্দে। এর আখ্যানভাগে এবং রচনাশৈলীতে উপন্যাসের মেজাজ পরিলক্ষিত হয়। অচিরেই বাংলা উপন্যাসের একটি দৃঢ় ভিত্তি স্থাপন করেন বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। বঙ্কিমচন্দ্র থেকে শুরু করে দীর্ঘ কাল বাংলা উপন্যাসে ইউরোপীয় উপন্যাসের ধাঁচ ছায়া ফেলেছে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর যিনি বাংলা সাহিত্যের সকল শাখাকে ঋদ্ধ করেছেন তার হাতেও উপন্যাস নতুন মাত্রা লাভ করেছে যদিও সমালোচকরা রবীন্দ্রনাথের উপন্যাসকে রসোত্তীর্ণ মনে করেন না। শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ঊনবিংশ-বিংশ শতাব্দীর আরেকজন প্রভাবশালী ঔপন্যাসিক যিনি উপন্যসের জন্য দেশীয় সমাজ-সংস্কৃতিকে অবলম্বন করেছেন। তবে এরা সবাই মানুষের ওপর তলের ওপর দৃষ্টি সীমাবদ্ধ রেখেছেন।

বাংলা উপন্যাস ও তার রচয়িতা তালিকা

নংউপন্যাসরচয়িতা
1তিতাস একটি নদীর নামঅদৈত্য মল্লবর্মন
2প্রথম প্রতিশ্রুতিআশাপূর্ণা দেবী
3সুবর্ণলতাআশাপূর্ণা দেবী
4হুতুম প্যাঁচার নকশাকালীপ্রসন্ন সিংহ
5গণদেবতাতারাশংকর বন্দোপাধ্যায়
6হাঁসুলি বাঁকের উপকথাতারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
7মৃত্যুক্ষুধানজরুল ইসলাম
8টেনিদা সমগ্রনারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়
9আলালের ঘরের দুলালপ্যারীচাঁদ মিত্র
10দুর্গেশনন্দিনীবঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
11দেবী চৌধুরানীবঙ্কিমচন্দ্র চট্রোপাধ্যায়
12আনন্দ মঠবঙ্কিমচন্দ্র চট্রোপাধ্যায়
13কপালকুণ্ডলাবঙ্কিমচন্দ্র চট্রোপাধ্যায়
14ভূবনসোমবলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়
15পথের পাঁচালিবিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়
16আরণ্যকবিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়
17চাঁদের পাহাড়বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়
18সাহেব বিবি গোলামবিমল মিত্র
19কোনিমতি নন্দী
20ছোটবাবুমতি নন্দী
21হাজার চুরাশির মামহাশ্বেতা দেবী
22অরণ্যের অধিকারমহাশ্বেতা দেবী
23পদ্মা নদীর মাঝিমাণিক বন্দোপাধ্যায়
24পুতুল নাচের ইতিকথামাণিক বন্দোপাধ্যায়
25গোরারবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
26শেষের কবিতারবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
27চোখের বালিরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
28ঘরে বাইরেরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
29পথের দাবীশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
30চরিত্রহীনশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
31শ্রীকান্তশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
32দেবদাসশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
33পরিণীতাশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
34ব্যোমকেশ সমগ্রশরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়
35তুঙ্গভদ্রার তীরেশরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়
36ঘুনপোকাশীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়
37ফেলুদা সমগ্রসত্যজিত রায়
38কামনা বাসনাসমরেশ বসু
39প্রথম আলোসুনীল গঙ্গোপাধ্যায়
40সেই সময়সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়
41অরণ্যের দিনরাত্রিসুনীল গঙ্গোপাধ্যায়
42বেদের মেয়েহরপ্রসাদ শাস্ত্রী

Leave a Comment