জিওস্টেশনারী ও সানসিনক্রোনাশ উপগ্রহের পার্থক্য | ভূসমলয় উপগ্রহ ও সূর্যসমলয় উপগ্রহের পার্থক্য লেখো।

জিওস্টেশনারী ও সানসিনক্রোনাশ উপগ্রহের পার্থক্য | ভূসমলয় উপগ্রহ ও সূর্যসমলয় উপগ্রহের পার্থক্য লেখো:

ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইট ও সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটের পার্থক্যগুলি হলো-

১)সংজ্ঞা-যে সমস্ত উপগ্রহ পৃথিবীর কোন একটি স্থানের সাপেক্ষে আবর্তন গতির সমানতালে ২৪ ঘন্টায় একবার পশ্চিম থেকে পূর্বে পৃথিবীর চারিদিকে ঘোরে, তাদের ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইট বলে।অন্যদিকে, যে সমস্ত উপগ্রহ সূর্যের আপাতন কোণের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে মেরু কক্ষপথে উত্তর থেকে দক্ষিনে পৃথিবীর চারদিকে ঘোরে, তাদের সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইট বলে।

২)অবস্থান-ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইটগুলি নিরক্ষীয় তল বরাবর 36,000 কিলোমিটার উর্ধ্বে নিরক্ষরেখা বরাবর অবস্থান করে।

অন্যদিকে, সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটগুলি মেরু অক্ষ বরাবর 700-900 কিলোমিটার ঊর্ধ্বে অবস্থান করে।

৩)আবর্তনের দিক-ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইটগুলি পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে আবর্তন করে। অন্যদিকে, সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটগুলি উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে আবর্তন করে।

৪)প্রদক্ষিণকাল-ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইটগুলি দিনে 1বার পৃথিবী প্রদক্ষিণ করে।অন্যদিকে, সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটগুলি দিনে গড়ে 14 বার পৃথিবী প্রদক্ষিণ করে।

৫)চিত্র সংগ্রহ-ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইটগুলি একই জায়গায় পৃথিবীর অর্ধেক অংশের ছবি তুলতে পারে। অন্যদিকে, সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটগুলি পৃথিবীর সমস্ত অংশের ছবি তুলতে পারে।

৬)তথ্য প্রদান-ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইটগুলি থেকে প্রাপ্ত তথ্য আবহাওয়া বিশ্লেষণ ও যোগাযোগ সংক্রান্ত কাজে ব্যবহার করা হয়।অন্যদিকে, সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটগুলি থেকে প্রাপ্ত তথ্য জরিপ কার্যে,বিষয়ানুগ মানচিত্র প্রস্তুতিতে, ভূমির ব্যবহার বিশ্লেষণে ও সম্পদ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের কাজে ব্যবহার করা হয়।

৭)উদাহরণ-ভারতের INSAT, রাশিয়ার GOMS, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের NOAA হলো ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি স্যাটেলাইটের উদাহরণ। অন্যদিকে, ভারতের IRS, ফ্রান্সের SPOT, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের LANDSAT হলো সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস স্যাটেলাইটের উদাহরণ।

Leave a Comment