কাঁচামালের অভাব সত্ত্বেও জাপান লৌহ ইস্পাত শিল্পে উন্নত কেন?

কাঁচামালের অভাব সত্ত্বেও জাপান লৌহ ইস্পাত শিল্পে উন্নত কেন?: কাঁচামালের অভাব সত্ত্বেও জাপান লৌহ ইস্পাত উৎপাদন ও রপ্তানিতে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে। জাপানের প্রধান প্রধান লৌহ ইস্পাত উৎপাদন কেন্দ্র গুলি হল – টোকিও ইয়োকহামা, কোবে, ওসাকা প্রভৃতি। কাঁচামালের অভাব সত্ত্বেও জাপান লৌহ ইস্পাত শিল্পে উন্নত হওয়ার কারণ গুলি হল –

1. উন্নত প্রযুক্তি – জাপান প্রযুক্তি অতি উন্নত মানের ও এখানে ক্রমাগত প্রযুক্তির উন্নতি ঘটে চলেছে। জাপান এই উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে লৌহ ইস্পাত উৎপাদন করে বলে কয়লা ও লৌহ আকরিক প্রভৃতি প্রধান কাঁচামাল খুব কম পরিমাণে লাগে। ফলে আমদানি কৃত কাঁচামালের উপর নির্ভর করলেও খরচ যথেষ্ট কম হয়। 

2. উন্নত বন্দর – জাপানের চারদিকে সমুদ্র বেষ্টিত উপকূল ভগ্ন তাই এখানে অসংখ্য স্বাভাবিক পোতাশ্রয় যুক্ত বন্দর গড়ে তোলা হয়েছে। তাই এই বন্দর গুলির মাধ্যমে সহজেই ভারত থেকে আকরিক লোহা ও অস্ট্রেলিয়া থেকে কয়লা আমদানি করতে পারে। 

3. স্ক্রাপ লোহার জোগান – জাপানের বড়ো বড়ো শহর গুলি থেকে প্রচুর স্ক্র্যাপ লোহা পাওয়া যায়। এছাড়া জাপান জলপথে বিদেশ থেকে প্রচুর স্ক্র্যাপ লোহা আমদানি করে, যা লৌহ ইস্পাত শিল্পে কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয়। 

4. জলবিদ্যুৎ এর প্রাচুর্য – জাপান অফুরন্ত জলবিদ্যুৎ উৎপাদনে অত্যন্ত উন্নত। এই সুলভ জলবিদ্যুৎ জাপানের লৌহ ইস্পাত শিল্পে ব্যবহার করা হয়।

5. চাহিদা ও বাজার – প্রযুক্তিতে উন্নত বলে জাপানের তৈরি ইস্পাত উন্নত মানের, তাই আন্তজার্তিক স্তরে জাপানের ইস্পাত অত্যন্ত জনপ্রিয়। জাপান ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পে উন্নত বলে ইস্পাতের অভূন্তরীন চাহিদাও অনেক বেশি।

6. শিক্ষিত ও দক্ষ শ্রমিক – আধুনিক কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত শ্রমিক দের সংখ্যা জাপানে খুব বেশি এবং এখানকার শ্রমিকরা খুব দক্ষ ও পরিশ্রমী। 

উপরোক্ত অবস্থা গুলির আনুকূল্যে জাপান পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ট লৌহ ইস্পাত উৎপাদক দেশে পরিণত হয়েছে এবং লৌহ ইস্পাত শিল্পে উন্নত তর হয়েছে। 

Leave a Comment