স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হার – উষ্ণতা হ্রাসের স্বাভাবিক হার কাকে বলে?

স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হার – উষ্ণতা হ্রাসের স্বাভাবিক হার কাকে বলে?: বায়ু মণ্ডলের একটি অতি গুরুত্বপূর্ন ঘটনা হল স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হার বা নরমাল ল্যাপস রেট। সাধারণত বায়ুমণ্ডলীয় উষ্ণতা ও উচ্চতার সম্পর্ক নির্দেশ করে এই নরমাল ল্যাপস রেট। স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হারের সংজ্ঞা টি হল – বায়ুমন্ডলের ট্রপো স্ফিয়ারে ভূপৃষ্ঠ থেকে উচ্চতা বৃদ্ধির সাথে সাথে একটি নির্দিষ্ট হারে বায়ুমন্ডলের উষ্ণতা হ্রাস পেতে থাকে, যা স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হার বা Normal Lapse Rate নামে পরিচিত। স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হার প্রতি 1000 মিটার উচ্চতায় 6.5 ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে উচ্চতা, অবস্থান ও ঋতু ভেদে স্বাভাবিক উষ্ণতা হ্রাসের হারের পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। 

নিম্নলিখিত কারণ গুলির জন্য উচ্চতা বৃদ্ধির ফলে বায়ুমণ্ডলীয় উষ্ণতা হ্রাস পেয়ে থাকে 

1) বায়ুমন্ডল মূলত ভূপৃষ্ট থেকে বিকিরিত তাপের দ্বারা উত্তপ্ত হয়ে থাকে। তাই ভূপৃষ্ঠ সংলগ্ন বায়ু অধিক উষ্ণ হয় এবং ভূপৃষ্ঠ থেকে যত উপরে ওঠা যায় উষ্ণতা তত হ্রাস পেতে থাকে। 

2) ঊর্ধ্ব বায়ু স্তরের চাপে ভূপৃষ্ঠ সংলগ্ন বায়ুর চাপ অধিক হয়। কিন্তু উপরের দিকে প্রসারিত বায়ুর ঘনত্ব কম হওয়ায় বায়ু হালকা হয় ও ওই হালকা বায়ু দ্বারা ধারণ কৃত উষ্ণতার পরিমাণ হ্রাস পায়। 

3) ভূপৃষ্ঠ সংলগ্ন বায়ুতে উপস্থিত জলীয় বাষ্প, কার্বন ডাই অক্সাইড, ধূলিকণা প্রভৃতি পার্থিব বিকিরণের অধিক অংশ শোষণ করে নিম্ন বায়ুমন্ডলের উষ্ণতা বৃদ্ধি করে। কিন্তু বায়ুর উপরি স্তর এ এই সব গ্যাসের পরিমাণ কম থাকে বলে উষ্ণতা স্বাভাবিক ভাবেই কমে যায়। 

Leave a Comment