গায়া হাইপোথেসিস উৎপত্তি ও ধারণা – গাইয়া অনুসিদ্ধান্ত

গায়া হাইপোথেসিস উৎপত্তি ও ধারণা – গাইয়া অনুসিদ্ধান্ত: গাইয়া অনুসিদ্ধান্ত একটি প্রস্তাবনা যেখানে বলা আছে, প্রতিটি জীব তাদের পরিপার্শ্বের সাথে এমনভাবে ক্রিয়াশীল যাতে করে পৃথিবীর সমস্তটাই একটা স্বনিয়ন্ত্রিত জটিল ব্যবস্থায় পরিণত হয়, এই ব্যবস্থাটি আবার পৃথিবীকে জীবনধারণের উপযোগী করে তোলে। অন্য কথায়, পৃথিবী নিজেই একটি জীবন্ত সত্তা। এই প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেন বিজ্ঞানী জেমস লাভলক ১৯৭২ সালে এবং অণুজীববিজ্ঞানী লিন মারগুলিস ১৯৭৪ সালে তত্ত্বটি সমর্থন করেন।

উৎপত্তি: গায়া হাইপোথেসিস (Gaia Hypothesis) ধারণা টি প্রথম উপস্থাপনা করেন ব্রিটিশ রসায়ন বিদ James Lovelock ও তার সহকারী আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষুদ্র জীববিদ  Lynn Margulis ১৯৭০ এর দশকে। James Lovelock  “Gaia” নাম টি দেন গ্রিকের পৃথিবীর দেবী “গাইয়ার” এর নাম অনুসারে। Gaia Hypothesis যেটি বর্তমানে Gaia তত্ত্ব বা Gaia নীতি নামে পরিচিত। 

ধারনার বিকাশ:  জেমস লাভলক নাসায় কাজ করার সময় দেখেন যে মঙ্গল গ্রহে প্রানের অস্তিত্ব নেই, কিন্তু পৃথিবীতে অত্যাধিক মাত্রায় নাইট্রোজেন ও অক্সিজেন থাকা সত্ত্বেও কিভাবে প্রানের বিকাশ সম্ভব হয়েছে, তা ব্যাখ্যা করার উপায় হিসাবে জেমস লাভলক গায়া হাইপোথেসিস  ধারনার উপস্থাপনা করেন।

প্রাথমিকভাবে, গাইয়া তত্ত্ব উপেক্ষা করা হয়েছিল কিন্তু পরবর্তী কালে কিছু শক্তিশালী প্রমানের দ্বারা বর্তমানে এটি প্রকাশিত হতে শুরু করেছে ও সমর্থন পাচ্ছে।

পৃথিবী জীবনের জন্য একটি নিখুঁত গ্রহ তবে Gaia তত্ত্ব অনুসারে এটি কোনও কাকতালীয় ঘটনা নয়। পৃথিবীতে জীবনের প্রথম আবির্ভাবের মুহুর্ত থেকেই এটি পৃথিবীকে আরও জীব বাসস্থানের  অনুকূল হিসাবে গড়ে তুলতে কঠোর পরিশ্রম করেছে।  গায়া হাইপোথেসিসে পৃথিবী এবংপৃথিবীর প্রাকৃতিক চক্রকে একটি  জীবিত প্রাণী হিসেবে ভাবা হয়। তাই যখন একটি প্রাকৃতিক চক্র কোনো কিছু ধ্বংস করে তখন অন্য চক্র এটিকে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করে, যা ক্রমাগতভাবে পৃথিবীতে জীবনের অনুকূল অবস্থার সৃষ্টি করে।

মূল ধারণা: Gaia তত্ত্বটি দাবি করে পৃথিবীর সব জীবিত জীব ও তাদের চারপাশের অজৈব পরিবেশ একত্রিত হয়ে একটি একক এবং স্বনিয়ন্ত্রিত জটিল সিস্টেম বা প্রণালী গঠন করে, যা স্বাভাবিক ভাবেই পৃথিবীতে বেঁচে থাকার অনুকূল পরিবেশের সৃষ্টি করে।

কিছু বিজ্ঞানী বিশ্বাস করেন যে, এটি একটি জীবন্ত সিস্টেম যা  স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে বিশ্ব তাপমাত্রা, বায়ুমণ্ডলীয় বিয়বস্তু, সমুদ্র লবনতা ও অন্যান্য প্রকৃতির উপাদান গুলিকে নিয়ন্ত্রিত করে, নিজস্ব আবাসস্থলের স্বাভাবিকতা বজায় রাখে।

James Lovelock প্রমাণ স্বরূপ বলেন – কিভাবে পৃথিবী উপ্তত্ত গরম গ্যাসীয় ও মিথেনোজেনিস ব্যাকটেরিয়া সমন্বিত অবস্থা থেকে বিবর্তন মাধ্যমে অক্সিজেন সমৃদ্ধ আবহাওয়ার সৃষ্টি হয়েছে, যা বর্তমান জটিল জীবন কে সমর্থন করে।

গায়া হাইপোথেসিসে অনুমান করে যে পৃথিবীর জীবজগত তার পরিবেশের সাথে সহবিকাশ করে। তাই জীব জগত পরিবেশের অজৈব উপাদান গুলিকে প্রভাবিত করে ঠিক তেমনি পৃথিবীর পরিবেশ ডারউইনিয়ান প্রক্রিয়ার দ্বারা জীব জগত কে প্রআভাবিত করে।

এই তত্ত্ব টি পৃথিবীর কিছু অস্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য, যেমন – কেন বায়ুমণ্ডলের বেশির ভাগ অংশ কার্বন ডাই অক্সাইড, কেন মহাসাগরগুলি বেশি লবণাক্ত হয় না – তা ব্যাখ্যা করতেও সহায়তা করে ।

Leave a Comment