রোম্যাঁ রোলাঁ জীবনী | Romain Rolland Biography in Bengali

রোম্যাঁ রোলাঁ জীবনী: Gksolve.in আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছে Romain Rolland Biography in Bengali. আপনারা যারা রোম্যাঁ রোলাঁ সম্পর্কে জানতে আগ্রহী রোম্যাঁ রোলাঁ র জীবনী টি পড়ুন ও জ্ঞানভাণ্ডার বৃদ্ধি করুন।

রোম্যাঁ রোলাঁ কে ছিলেন? Who is Romain Rolland?

রোম্যাঁ রোলাঁ (ফরাসি: Romain Rolland; ২৯ জানুয়ারি, ১৮৬৬ – ৩০ ডিসেম্বর, ১৯৪৪) ছিলেন একজন ফরাসি নাট্যকার, ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক, শিল্প ঐতিহাসিক ও অধ্যাত্মবিদ। ১৯১৫ সালে তিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হন। শিল্পকলা ও সংগীত গবেষক রোলাঁ ১৯০৩ সালে সর্বন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক নিযুক্ত হয়েছিলেন। তার প্রথম উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ Vie de Beethoven (বেটোভেন-চরিত) প্রকাশিত হয় ১৯০৩ সালে।

এরপর ১৯০৬ সালে মিকেলাঞ্জেলোর জীবনী ও ১৯১১ সালে তলস্তয়ের জীবনী রচনা করেছিলেন তিনি। জাঁ-ক্রিস্তফ তার সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য রচনা। ১৯১০ থেকে ১৯১২ সালের মধ্যে দশ খণ্ডে প্রকাশিত এই গ্রন্থটির জন্যই তিনি নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি যুদ্ধের বিরোধিতা করেন। রোলাঁ ছিলেন একজন ভারতপ্রেমিক ও ভারততত্ত্ববিদ। তিনি মহাত্মা গান্ধী, রামকৃষ্ণ পরমহংস ও স্বামী বিবেকানন্দের জীবনী রচনা করেছিলেন।

রোম্যাঁ রোলাঁ জীবনী – Romain Rolland Biography in Bengali

নামরোম্যাঁ রোলাঁ
জন্ম29 জানুয়ারী 1866
পিতাএমিলে রোলান্ড
মাতাঅ্যান্টোইনেত্তে-মারি কৌরোট
জন্মস্থানক্লেমসি, ফ্রান্স
জাতীয়তাফরাসি
পেশানাট্যকার, প্রাবন্ধিক, শিল্প ঐতিহাসিক ও ঔপন্যাসিক
মৃত্যু30 ডিসেম্বর 1944 (বয়স 78)

রোম্যাঁ রোলাঁ র জন্ম: Romain Rolland’s Birthday

রোম্যাঁ রোলাঁ 29 জানুয়ারী 1866 জন্মগ্রহণ করেন।

রোম্যাঁ রোলাঁ র পিতামাতা ও জন্মস্থান: Romain Rolland’s Parents And Birth Place

ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রখ্যাত চিন্তাবিদ এবং প্রগতিবাদী লেখকদের মধ্যে রোমাঁ রোলাঁ ছিলেন প্রথম সারির অন্যতম। ফ্রান্সের ক্ল্যামসিতে ১৮৬৬ খ্রিঃ ২৯ জানুয়ারী এক অভিজাত পরিবারে জন্মেছিলেন রোমাঁ রোলাঁ। পড়াশোনা করেন প্রথমে প্যারিসে ও পরে রোমে। সঙ্গীতের সঙ্গে সাহিত্য ও নাট্যশাস্ত্রের প্রতিও ছিল তাঁর অসীম আগ্রহ।

তবে শিক্ষার সর্বস্তরেই ছিল তাঁর গতি। রোলাঁর পূর্বপুরুষরা ছিলেন ধর্মযাজক। তিনি সেদিকে গেলেন না ৷ যৌবনে সঙ্গীত বিষয়ে গবেষণা করে পি . এইচ . ডি হয়ে রোমে ইতিহাসের অধ্যাপক হয়ে কর্মজীবন শুরু করলেন।

রোম্যাঁ রোলাঁ র কর্ম জীবন: Romain Rolland’s Work Life

পঁচিশ বছর বয়সে দেশে ফিরে এসে একাডেমি অব ফ্রান্স – এ শিল্প ইতিহাসের অধ্যাপকের চাকরি নিলেন। অধ্যাপক হিসেবে তিনি খুবই জনপ্রিয় হয়েছিলেন। তিনিই সম্ভবতঃ প্রথম ইউরোপীয় সাহিত্যিক যিনি সাহিত্যের সঙ্গে সঙ্গীতের অপূর্ব সমন্বয় সাধন করতে পেরেছিলেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের ধ্বংসাত্মক পরিসমাপ্তি তাঁকে খুবই বেদনার্ত করে তুলেছিল। যুদ্ধ, সাম্রাজ্যবাদ ও জাতিগত বিভেদ থেকে উৎপন্ন বিশ্বমানবতার আর্ত ক্রন্দন তাকে বিশ্বশান্তি ও বিশ্বভ্রাতৃত্বের অনুকূলে আন্দোলন আরম্ভ করতে উদ্বুদ্ধ করেছিল।

১৯১৪ খ্রিঃ সুইজারল্যান্ডে বাসকালে তিনি বিখ্যাত শান্তিবাদী ইস্তাহার An dssus de la melee প্রকাশ করেন। এই ইস্তাহারে তিনি প্রাচ্য ও পশ্চাত্যের মনীষী, লেখক, শিল্পী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের স্বাক্ষর গ্রহণ করে প্রচার করেন। তার প্রচেষ্টা বিশ্ববিবেককে জাগ্রত করে তুলতে সাহায্য করেছিল। রোলাঁর উদ্যোগ ইংলন্ড ফ্রান্স প্রভৃতি দেশে বিপুল জনসমর্থন লাভ করেছিল। কিন্তু জার্মানীতে হিটলারের উত্থানের ফলে ইউরোপের শান্তিবাদীদের প্রয়াস ব্যর্থ হয়।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অনেক আগেই রোলাঁ আর একটি মহাযুদ্ধের সম্ভাবনার আভাস অনুমান করতে পেরেছিলেন। শাস্তির বাণী প্রচারের উদ্দেশ্যে তিনি সাহিত্য এবং রাজনীতি এই দুই মাধ্যম আশ্রয় করেন। যুদ্ধের বিরুদ্ধে তার শাণিত বচনাগুলি স্থান পায় I will not Rest গ্রন্থে। রোলাঁ ছিলেন মনে প্রাণে বিপ্লবী এবং ব্যক্তিত্ববাদী মানবিকতার পক্ষপাতী ! প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের মধ্যে মহামিলনের সেতুবন্ধের তিনি ছিলেন অন্যতম অগ্রণী পুরুষ।

রোম্যাঁ রোলাঁ র রচনা: Written by Romain Rolland

গুণী ব্যক্তিদের প্রতি সতত শ্রদ্ধাবান রোলাঁ, মাইকেল এঞ্জেলো, টলস্টয়, বিটোফেন, মহাত্মা গান্ধী, রামকৃষ্ণদেব, বিবেকানন্দ প্রভৃতি জগদ্বরেণ্য পুরুষদের জীবনী রচনা করেছেন। রবীন্দ্রনাথের সঙ্গেও ছিল তাঁর অকৃত্রিম সৌহার্দ্য। তাঁর রচনার মাধ্যমেই ইউরোপের বুদ্ধিজীবী ও সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছেছিল ভারতাত্মার সনাতন শান্তির বাণী। ভারতবর্ষের অধ্যাত্মবাদের প্রতি ছিল রোলাঁর অপরিসীম আগ্রহ।

ইউরোপের বুদ্ধিজীবী, শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষদের তিনি অনুপ্রাণিত করেছিলেন ভারতবর্ষের স্বাধীনতার আন্দোলনে সহযোগিতা করতে। বারবার ধিক্কার ঘোষণা করেছেন সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে। পৃথিবীর যেখানেই কোন অবিচার অত্যাচার ঘটেছে, রোলাঁ অকুন্ঠিত কণ্ঠে ধিক্কার জ্ঞাপন করেছেন। প্রচারিত হয়েছে তার অহিংস বিদ্রোহের বাণী। রবীন্দ্রনাথের দৃষ্টিতে রোলাঁ ছিলেন পাশ্চাত্যে ভারতের আধ্যাত্মিক রাষ্ট্রদূত।

রোম্যাঁ রোলাঁ র পুরস্কার ও সম্মান: Romain Rolland’s Awards And Honors

রোলাঁর রচিত মহা উপন্যাস জাঁ – ক্রিস্তভ (Jean Christophe) ১৯০৪ খিঃ থেকে ১৯১২ খ্রিঃ মধ্যে রচিত হয়। এই বিশ্বখ্যাত গ্রন্থের জন্য তিনি ১৯১৫ খ্রিঃ নোবেল পুরস্কারে সম্মানিত হন। তার সম্পর্কে নোবেল কমিটির মন্তব্য ছিল এ রকমঃ অব এ ট্রিবিউট টু দ্য লফটি আইডিয়ালিজম অব হিজ লিটারেচার প্রোডাকশন অ্যান্ড টু দ্য সিমপ্যাথি অ্যান্ডলাভ অব ট্রুথ, হুইচ হি হ্যাজ ডেসক্রাইবড ডিফারেন্ট টাইগস অব হিউম্যান বিইংস।

পুরস্কারের টাকা রোলাঁ রেড ক্রশ ও ফ্রেঞ্চ ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশনকে দান করেন। তার অন্যান্য বিখ্যাত রচনা হল ডন, মর্নিং দ্য মার্কেট প্লেস, দ্য হাউস, লাভ অ্যান্ড ফ্রেন্ডসিপ এবং দ্য টাইম উইল কাম প্রভৃতি। গণনাট্য (Peoples’Theatre) সৃষ্টি বিষয়ে রোলাঁ ছিলেন বিশেষ উৎসাহী। এই উদ্দেশ্যে তিনি রচনা করেছিলেন কুড়িটি নাটক।

রোম্যাঁ রোলাঁ র মৃত্যু: Romain Rolland’s Death

১৯৪৪ খ্রিঃ ৩১ শে ডিসেম্বর রোম্যাঁ রোলাঁর মৃত্যু হয়।

Leave a Comment