গ্রামীণ বসতি কাকে বলে? গ্রামীণ বসতিকে কয় ভাগে ভাগ করা হয় ও কি কি?

গ্রামীণ বসতি কাকে বলে? গ্রামীণ বসতিকে কয় ভাগে ভাগ করা হয় ও কি কি?

গ্রামীণ বসতি: গ্রামীণ বসতি হলো এমন একটি সুসংঘবদ্ধ মনুষ্য বসতি, যেখানে বসবাসকারী অধিকাংশ মানুষ কৃষিকাজ, খনিজ দ্রব্য সংগ্রহ, মৎস্য শিকার, পশুপালন, বনজ সম্পদ সংগ্রহ ইত্যাদি জমি ভিত্তিক প্রাথমিক অর্থনৈতিক ক্রিয়া-কলাপে যুক্ত থাকেন এবং যার লোক সংখ্যা 5000 জনের কম হয়।

গ্রামীণ বসতির শ্রেণীবিভাগ

অবস্থান ও বসতবাড়িগুলির পরস্পরের মধ্যে দূরত্ব বা ব্যবধান অনুসারে গ্রামীণ বসতিকে তিন ভাগে ভাগ করা হয়। যথা-

১)গোষ্ঠীবদ্ধ বা সংঘবদ্ধ বসতি: ভূ-পৃষ্ঠের কোন স্থানে কোনো সুযোগ-সুবিধার ভিত্তিতে অনেকগুলি পরিবার বহু সংখ্যক বাসগৃহে পরস্পরের খুব কাছাকাছি ঘনসঙ্ঘবদ্ধ ও সমষ্টিগতভাবে বসবাস করলে যে গ্রামীণ বসতির উদ্ভব হয়, তাকে গোষ্ঠীবদ্ধ বা সংঘবদ্ধ বা পিন্ডাকৃতি জনবসতি বলে।

২)দণ্ডাকৃতি বা রৈখিক বসতি: ভূপৃষ্ঠের কোন স্থানে বিভিন্ন অনুকূল প্রাকৃতিক ও আর্থসামাজিক কারণে অনেকগুলি পরিবার সড়ক পথ, রেলপথ, নদী ও খালের পাড় বরাবর অনেকগুলি বাসগৃহে সারিবদ্ধ ভাবে একই সাথে বসবাস করলে যে গ্রামীণ জনবসতির উদ্ভব হয়, তাকে রৈখিক জনবসতি বা দন্ডাকৃতি বসতি বলে।

৩)বিক্ষিপ্ত বসতি: ভূপৃষ্ঠের কোন স্থানে বিভিন্ন প্রাকৃতিক ও আর্থসামাজিক কারণে কয়েকটি পরিবার একে অন্যের থেকে পৃথক হয়ে বা ছড়িয়ে ছিটিয়ে বিক্ষিপ্তভাবে বসবাস করলে যে গ্রামীণ বসতির উদ্ভব হয়, তাকে বিক্ষিপ্ত বা বিচ্ছিন্ন বা ইতস্তত বসতি বলে।

Leave a Comment