ভারতের কৃষি – ভারতীয় কৃষির বৈশিষ্ট্য | ভারতের কৃষির বৈশিষ্ট্য গুলি আলোচনা করো।

ভারতের কৃষি – ভারতীয় কৃষির বৈশিষ্ট্য | ভারতের কৃষির বৈশিষ্ট্য গুলি আলোচনা করো: ভারতবর্ষ একটি কৃষি প্রধান দেশ। এদেশের প্রায় 17.51 কোটি হেক্টর জমিতে কৃষিকাজ করা হয় এবং এদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কৃষিকাজের উপর নির্ভরশীল। ভারতের এই বিশালায়তন জমিতে যে কৃষিকাজ করা হয়, তার নিম্নলিখিত বৈশিষ্ট্য গুলি দেখা যায়-

১)মৌসুমি জলবায়ুর প্রভাব: মৌসুমি জলবায়ুর প্রভাব ভারতীয় কৃষির প্রধান বৈশিষ্ট্য। এদেশের কৃষি ব্যবস্থা মৌসুমি জলবায়ুর ওপর নির্ভরশীল বলে মৌসুমী বায়ুর আগমন ও প্রত্যাগমনের উপর নির্ভর করে কৃষিজ ফসল নির্বাচন করা হয়।

২)শ্রম নিবিড় কৃষি: ভারতে মাথাপিছু কৃষি জমির পরিমাণ কম হওয়ায় অল্প জমিতে বেশি সংখ্যক কৃষি শ্রমিক নিয়োগ করে শ্রম নিবিড় পদ্ধতিতে কৃষিকাজ করা হয়।

৩)জীবিকা সত্ত্বা ভিত্তিক কৃষি: ভারতে কৃষি জমির তুলনায় জনসংখ্যা বেশি হওয়ায় এদেশে উৎপাদিত কৃষিজ ফসলের বেশিরভাগটাই কৃষকদের নিজেদের প্রয়োজনে ব্যবহৃত হয়, রপ্তানি হয় খুব সামান্য। তাই এদেশের কৃষি ব্যবস্থা জীবিকা সত্ত্বা ভিত্তিক কৃষির অন্তর্গত।

৪)প্রাচীন প্রথা অনুসরণ: ভারতের গ্রামাঞ্চলে এখনো অনেকক্ষেত্রে প্রাচীন ও অবৈজ্ঞানিক প্রথায় কৃষি কাজ করা হয়। কৃষিক্ষেত্রে এখনো বলদ টানা লাঙ্গল, কোদাল, কাস্তে ইত্যাদি প্রাচীন যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয় এবং অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি, রাসায়নিক সার, কীটনাশক, আগাছানাশক ইত্যাদির ব্যবহার কম হয়।ফলে এদেশে কৃষিজ ফসল উৎপাদনের পরিমাণও কম হয়।

৫)খাদ্যশস্যের প্রাধান্য: ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় জনবহুল দেশ হওয়ায় এদেশের বিপুল জনসংখ্যার বিশাল খাদ্যের চাহিদা পূরণের জন্য অধিকাংশ কৃষিজমিতে (প্রায় ৯২%) খাদ্য শস্যের চাষ করা হয় এবং অন্যান্য শস্যের চাষ কম হয়।

৬)ভাগচাষীর প্রাধান্য: ভারতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি কৃষকের সংখ্যা অত্যন্ত বেশি। এছাড়া এদেশের বহু কৃষকের নিজস্ব জমিও নেই। তারা অন্যের জমি ভাগচাষ শর্তে চাষ করে থাকে। এদের বর্গাদার বা ভাগচাষী বলে।

উপরিলিখিত বৈশিষ্ট্যগুলি ছাড়াও জমির স্বল্প পরিমাণ, হেক্টর প্রতি অধিক উৎপাদন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি কৃষিজোত, প্রকৃতির ওপর নির্ভরশীলতা ইত্যাদি বিষয়গুলি ভারতীয় কৃষির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য।

Leave a Comment