মৃত্তিকা বিক্রিয়া ও মাটির pH এর ধারণা

মৃত্তিকা বিক্রিয়া ও মাটির pH এর ধারণা:

এখানে মৃত্তিকা বিক্রিয়া বলতে কি বোঝ ও মৃত্তিকার pH কি সেই সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

মৃত্তিকা বিক্রিয়া –  মৃত্তিকার রাসায়নিক বৈশিষ্ট্য গুলির মধ্যে অন্যতম হল মৃত্তিকা বিক্রিয়া। মৃত্তিকা বিক্রিয়া বলতে মৃত্তিকা দ্রবণের অম্লত্ব, নিরপেক্ষতা ও ক্ষারকীয়তা কে বোঝানো হয়ে থাকে। সাধারণত মৃত্তিকা বিক্রিয়ার প্রকৃতি নির্ভর করে এক লিটার মৃত্তিকা দ্রবণে হাইড্রোজেন (H+) ও হাইড্রক্সিল (OH-) আয়নের পারস্পারিক গাঢ়ত্বের ওপর। মৃত্তিকা দ্রবণে হাইড্রক্সিল আয়নের চেয়ে হাইড্রোজেন আয়নের পরিমাণ বেশি হলে মৃত্তিকার দ্রবণে অম্লত্ব এর সৃষ্টি হয় এবং হাইড্রোজেন আয়নের চেয়ে হাইড্রক্সিল আয়নের পরিমাণ বৃদ্ধিতে মৃত্তিকার দ্রবণে ক্ষারত্ব দেখা দেয়। দ্রবণে হাইড্রোজেন ও হাইড্রক্সিল আয়নের গাঢ়ত্ব সমান হলে বিক্রিয়া হয় নিরপেক্ষ। সাধারণত দেখা গেছে যে এক লিটার মৃত্তিকা দ্রবণে দ্রবীভূত হাইড্রোজেন ও হাইড্রক্সিল আয়নের পরিমাণ 10ᐨ¹⁴ গ্রাম। যদিও দ্রবণে এই হাইড্রোজেন ও হাইড্রক্সিল আয়নের উপস্থিতির  পরিমাণে আনুপাতিক তারতম্য দেখা যায় কিন্তু মোট পরিমাণ সব সময় স্থির থাকে। অর্থাৎ যদি দ্রবণে হাইড্রোজেন আয়নের গাঢ়ত্ব বেশি হয় তাহলে হাইড্রক্সিল আয়নের পরিমাণ তুলনামূলক ভাবে কম হবে। যেমন হাইড্রোজেন আয়নের পরিমাণ 10ᐨ⁸ হয় তাহলে ঐ দ্রবণে হাইড্রক্সিল আয়নের পরিমাণ হবে 10ᐨ⁶ । 

মৃত্তিকা pH – মৃত্তিকার রাসায়নিক বিক্রিয়া সাধারণত হাইড্রোজেন আয়নের গাঢ়ত্ব এর পরিমাণ দ্বারা নির্ধারণ করা হয়, যা মৃত্তিকা pH নামে পরিচিত। বিজ্ঞানী সোরেনসন 1909 সালে এই pH স্কেলের আবিষ্কার করেন। মৃত্তিকা pH বলতে এমন একটি স্কেল বা পরিমাপক কে বোঝায়, যার মাধ্যমে মৃত্তিকা দ্রবণের অম্লত্ব ও ক্ষারকিয়তা কে নির্ণয় করা হয়। pH এর মান 0-14 পর্যন্ত হয় এবং এই মান ঋণাত্মক লগারিদম স্কেলের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। অর্থাৎ pH স্কেলের মান 1 বাড়লে বা কমলে অম্লত্ব বা ক্ষারত্ব পূর্বের তুলনায় 10 গুন বৃদ্ধি পায়। কোনো মৃত্তিকা দ্রবণে pH এর মান 10ᐨ⁷ এর মানে 1লিটার মৃত্তিকা দ্রবণে দ্রবীভূত হাইড্রোজেন আয়নের পরিমাণ 0.0000001 গ্রাম। এই pH স্কেলের মান 7 হলে তা প্রশমিত মৃত্তিকা, 7 এর কম হলে আম্লিক মৃত্তিকা এবং 7 এর বেশি হলে ক্ষারকীয় মৃত্তিকা বলা হয়।

Leave a Comment