মাধ্যমিক ইতিহাস প্রতিরোধ ও বিদ্রোহ বৈশিষ্ট্য ও বিশ্লেষণ প্রশ্নোত্তর

মাধ্যমিক ইতিহাস প্রতিরোধ ও বিদ্রোহ বৈশিষ্ট্য ও বিশ্লেষণ প্রশ্নোত্তর | Madhyamik History Resistance and Rebellion Question Answer: ভারতে ঔপনিবেশিক শাসন পর্বে অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষ পর্বে এবং উনবিংশ শতাব্দীতে একাধিক অরণ্য আইন এবং রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে আদিবাসীদের অর্থনৈতিক স্বাধীনতা এবং স্বাধিকারকে ক্ষুণ্ণ করা হয়েছিল। আদিবাসী জনগোষ্ঠী তা সহজভাবে মেনে নিতে পারেনি ফলস্বরূপ ভারতের বিভিন্ন আদিবাসী জনগোষ্ঠী বিদ্রোহ ঘোষণা করেছিল ।এই বিদ্রোহগুলি ছিল তীব্র এবং স্বতঃস্ফূর্ত ।ব্রিটিশ প্রশাসন প্রায় সমস্ত আদিবাসী বিদ্রোহ শেষ পর্যন্ত দমন করতে পারলেও তীব্র চাপ এবং প্রতিরোধের মুখে পড়েছিল।

মাধ্যমিক ইতিহাস প্রতিরোধ ও বিদ্রোহ বৈশিষ্ট্য ও বিশ্লেষণ প্রশ্নোত্তর | Madhyamik History Resistance and Rebellion Question Answer

১)ব্রিটিশ ভারতে মোট কতগুলি অরণ্য আইন পাশ হয়েছিল?

Ans: তিনটি-1865, 1878 ও 1927 খ্রিস্টাব্দে।

২)ভারতে কবে প্রথম অরণ্য আইন পাশ হয়?

Ans: 1865 খ্রিস্টাব্দে।

৩)1865 খ্রিস্টাব্দে অরণ্য আইনে অরণ্যকে কয় ভাগে ভাগ করা হয়েছিল?

Ans: তিন ভাগে (সংরক্ষিত অরণ্য, সুরক্ষিত অরণ্য, গ্রামীণ অরণ্য)।

৪) 1878 খ্রিস্টাব্দের অরণ্য আইনে অরণ্যকে কয় ভাগে ভাগ করা হয়েছিল?

Ans: তিন ভাগে(সংরক্ষিত অরণ্য, সুরক্ষিত অরণ্য, গ্রামীণ অরণ্য)।

৫)কবে কার নেতৃত্বে প্রথম চুয়াড় বিদ্রোহ সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1768,-69 খ্রিস্টাব্দে ধলভূমের রাজা জগন্নাথ সিংহের নেতৃত্বে।

৬)1798-99 খ্রিস্টাব্দে সংঘটিত চুয়াড় বিদ্রোহের দ্বিতীয় পর্যায়ে কারা নেতৃত্ব দিয়েছিল?

Ans: দুর্জন সিংহ, অচল সিংহ, মাধব সিংহ প্রমুখ।

৭)মেদিনীপুর, বাঁকুড়া ও ধলভূমের স্থানীয় জমিদারদের অধীনে রক্ষী বাহিনীর কাজ করে জীবিকা নির্বাহকারী চুয়াড়দের কি বলা হতো?

Ans: পাইক।

৮)জঙ্গলমহল জেলা কবে গঠিত হয়?

Ans: 1800 খ্রিস্টাব্দে।

৯)কোন কোন অঞ্চল নিয়ে জঙ্গলমহল জেলা গঠিত হয়েছিল?

Ans: মেদিনীপুর, বাঁকুড়া,মানভূম বীরভূম প্রভৃতি।

১০)) গোবর্ধন দিকপতি কোন বিদ্রোহের নেতা ছিলেন?

Ans: চুয়াড় বিদ্রোহের।

১১)) চুয়ার শব্দের অর্থ কি?

Ans: দুর্বৃত্ত ও নীচজাতি।

১২)মেদিনীপুরের লক্ষীবাঈ কাকে বলা হয়?

Ans: রানী শিরোমণি।

১৩)ভারতে বন বিভাগ বা ফরেস্ট ডিপার্টমেন্ট কবে স্থাপিত হয়?

Ans: 1864 খ্রিস্টাব্দে।

১৪)ইন্ডিয়ান ফরেস্ট সার্ভিসের প্রধান উদ্যোক্তা কে ছিলেন?

Ans: ডায়াট্রিক ব্রান্ডিস।

১৫)ডায়াট্রিক ব্রান্ডিস কে ছিলেন?

Ans: জার্মান বন বিশেষজ্ঞ।

১৬) কোন শব্দ থেকে চুয়ার শব্দের উৎপত্তি হয়েছে?

Ans: চার।

১৭)বাংলায় চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত কে কবে প্রবর্তন করেন?

Ans: 1793 খ্রিস্টাব্দে লর্ড কর্নওয়ালিস।

১৮) পাইক বা সৈনিকের কাজ করে চুয়াররা বেতনের পরিবর্তে যে নিষ্কর জমি ভোগ করত, তাকে কি বলা হয়?

Ans: পাইকান।

১৯) ভারতের প্রথম ফরেস্ট ইন্সপেক্টর কে ছিলেন?

Ans: ডায়াট্রিক ব্রান্ডিস।

২০) রিজার্ভ ফরেস্ট অ্যাক্ট বা সংরক্ষিত অরণ্য আইন কবে পাস হয়?

Ans: 1878 খ্রিস্টাব্দে।

২১) কবে কার নেতৃত্বে রংপুর বিদ্রোহের সূচনা হয়?

Ans: 1783 খ্রিস্টাব্দের 18ই জানুয়ারি, নুরুলুদ্দিন।

২২) কোন গ্রামে রংপুর বিদ্রোহের সূচনা হয়?

Ans: তেপা গ্রামে।

২৩) রংপুর বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ?

Ans: নুরুলুদ্দিন, নন্দরাম, সুফদিল, ধীরাজরঞ্জন প্রমূখ।

২৪) কার বিরুদ্ধে রংপুর বিদ্রোহ সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: দিনাজপুর ও রংপুরের ইজারাদার দেবী সিং এর বিরুদ্ধে।

২৫) রংপুর বিদ্রোহীরা কাকে তাদের নবাব বলে ঘোষণা করেছিলেন?

Ans: দর্জি নারায়ন।

২৬)রংপুর বিদ্রোহের সময় রংপুরের কালেক্টর কে ছিলেন?

Ans: গুডল্যান্ড।

২৭)অরন্যের সন্তান কাদের বলা হয়?

Ans: কোল ও তাদের সমগোত্রীয় মুন্ডা ওঁরাও প্রভৃতি উপজাতিদের অরন্যের সন্তান বলা হয়।

২৮) কোলরা কোথায় বসবাস করত?

Ans: ছোটনাগপুর, রাঁচি ও সিংভূম অঞ্চলে।

২৯) কোল বিদ্রোহ কবে সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1831-32 খ্রিস্টাব্দে।

৩০)ইংরেজরা কবে ছোটনাগপুর ও সিংভূম দখল করে?

Ans: 1830 খ্রিস্টাব্দে।

৩১) কোল বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ?

Ans: বুদ্ধু ভগত, জোয়া ভগত, সুই মুন্ডা, বিন্দ্রাই মানকি প্রমূখ।

৩২)কোল বিদ্রোহে কোল ছাড়া আর কোন কোন উপজাতি যোগদান করেছিল?

Ans: হো, মুন্ডা, ওঁরাও প্রভৃতি।

৩৩) দিকু শব্দের অর্থ কি?

Ans: বহিরাগত।

৩৪) সুই মুন্ডা কোন বিদ্রোহের নেতা ছিলেন?

Ans: কোল বিদ্রোহের।

৩৫) কোল বিদ্রোহ কে কবে দমন করেন?

Ans: 1832 খ্রিস্টাব্দে ক্যাপ্টেন উইলকিন্স।

৩৬) দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্ত এজেন্সি কবে গঠিত হয়?

Ans: 1833 খ্রিস্টাব্দে।

৩৭) সাঁওতাল বিদ্রোহ কবে সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1855 56 খ্রিস্টাব্দে।

৩৮) সাঁওতাল বিদ্রোহের প্রতীক কি ছিল?

Ans: শাল গাছ।

৩৯) দামিন-ই-কোহ শব্দের অর্থ কি?

Ans: পাহাড়ের প্রান্তদেশ।

৪০)সাঁওতালি ভাষায় সাঁওতাল বিদ্রোহকে কি বলা হয়?

Ans: খেরওয়ারি হুল।

৪১) “হুল” শব্দের অর্থ কি?

Ans: বিদ্রোহ।

৪২) কবে এবং কোথায় সাঁওতাল বিদ্রোহের সূচনা হয়?

Ans: 1855 খ্রিষ্টাব্দের 30 শে জুন, ভাগনাডিহির মাঠে।

৪৩) সাঁওতাল বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ।

Ans: সিধু, কানু, চাঁদ, ভৈরব, বীর সিং, কালো প্রামানিক, ডোমন মাঝি প্রমুখ।

৪৪) সাঁওতাল বিদ্রোহের সময় ভারতের গভর্নর জেনারেল কে ছিলেন?

Ans: লর্ড ডালহৌসি।

৪৫)কোন ইংরেজ সেনাপতি সাঁওতালদের সঙ্গে যুদ্ধে পরাজিত হয়েছিলেন?

Ans: মেজর বরোজ।

৪৬)নৈকদা আন্দোলন কবে কোথায় সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1868 খ্রিস্টাব্দে গুজরাটে।

৪৭) মুন্ডা বিদ্রোহ কবে সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1899-1900 খ্রিস্টাব্দে।

৪৮) মুন্ডা শব্দের আক্ষরিক অর্থ কি?

Ans: গ্রাম প্রধান।

৪৯) বেট বেগারি প্রথা কোন বিদ্রোহের সঙ্গে সম্পর্কিত?

Ans: মুন্ডা বিদ্রোহ।

৫০) বেড বেগারির অর্থ কি?

Ans: বিনা পারিশ্রমিকে শ্রমদান।

৫১) মুন্ডা বিদ্রোহের প্রধান নেতা কে ছিলেন?

Ans: বিরসা মুন্ডা।

৫২) বিরসা মুন্ডার বাবার নাম কি?

Ans: সুগান মুন্ডা।

৫৩) খুৎকাঠি প্রথা কোন বিদ্রোহের সঙ্গে সম্পর্কিত?

Ans: মুন্ডা বিদ্রোহ।

৫৪) বিরসা মুন্ডা কবে কোথায় জন্মগ্রহণ করেন?

Ans: 1875 খ্রিস্টাব্দে, রাঁচি জেলার উলিহাতু গ্রামে।

৫৫)কে নিজেকে ধরতি আবা বলে ঘোষণা করেছিলেন?

Ans: বিরসা মুন্ডা।

৫৬) ধরতি আবা শব্দের অর্থ কি?

Ans: ধরণীর পিতা।

৫৭) বিরসা মুন্ডা কোন দেবতার উপাসনা করতেন?

Ans: শিংবোঙা বা সূর্য দেবতা।

৫৮) মুন্ডাদের ভাষায় মুন্ডা বিদ্রোহকে কি বলা হয়?

Ans: উলগুলান।

৫৯) উলগুলান শব্দের অর্থ কি?

Ans: ভয়ঙ্কর বিশৃংখলা।

৬০) খুৎকাঠি শব্দের অর্থ কি?

Ans: জমির যৌথ মালিকানা।

৬১) বিরসা মুন্ডার সেনাপতির নাম কি?

Ans: গয়া মুন্ডা।

৬২) মুন্ডা বিদ্রোহের প্রধান কেন্দ্র কোথায় ছিল?

Ans: খুঁটি।

৬৩) সইল রাকার পাহাড়ের যুদ্ধ কবে কাদের মধ্যে হয়েছিল?

Ans: 1900 খ্রিস্টাব্দের 9 জানুয়ারি, ইংরেজদের সঙ্গে মুন্ডাদের।

৬৪) ছোটনাগপুর প্রজাস্বত্ব আইন কবে পাস হয়?

Ans: 1908 খ্রিস্টাব্দে।

৬৫)বেট বেগারি প্রথা কি?

Ans: যে প্রথা অনুযায়ী জমিদার ও মহাজনরা বিনা মজুরিতে মুন্ডাদের বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে বাধ্য করতো,তাকে বেট বেগারি প্রথা বলে।

৬৬) খুৎকাঠি প্রথা কি?

Ans: ছোটনাগপুর ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে গভীর জঙ্গল কেটে মুন্ডাদের পূর্বপুরুষরা বা খুন্তকাঠিদাররা যে জমি তৈরি করেছিল তাকে খুন্তকাঠি বা খুৎকাঠি বলা হয়। এই খুন্তকাঠি জমির উপর মুন্ডাদের যৌথ মালিকানাকে খুৎকাঠি প্রথা বলা হয়।

৬৭) তানা ভগৎ আন্দোলন কবে কোথায় সংঘটিত হয়?

Ans: 1914 খ্রিস্টাব্দে, ছোটনাগপুর অঞ্চলে।

৬৮)তানা ভগৎ আন্দোলনে কোন কোন সম্প্রদায় যোগদান করেছিল?

Ans: তানা ভগৎ,ওঁরাও ও মুন্ডা সম্প্রদায়।

৬৯) তানা ভগৎ আন্দোলনের প্রধান নেতা কে ছিলেন?

Ans: যাত্রা ভগৎ ও তুরিয়া ভগৎ।

৭০) রামসী বিদ্রোহ কবে কোথায় সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1875 খ্রিস্টাব্দে, মহারাষ্ট্রে।

৭১)রামসী বিদ্রোহের প্রধান নেতা কে ছিলেন?

Ans: বাসুদেও বলবন্ত ফাড়কে।

৭২)ভারতের সশস্ত্র বিপ্লববাদের জনক কাকে বলা হয়?

Ans: বাসুদেও বলবন্ত ফাড়কে।

৭৩) ভিল বিদ্রোহ কবে কোথায় সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1819 খ্রিস্টাব্দে খান্দেশ অঞ্চলে।

৭৪) ভিলরা কোথায় বসবাস করত?

Ans: পশ্চিমঘাট পর্বতমালার পাদদেশের খান্দেশ অঞ্চলে।

৭৫) ভিল বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ।

Ans: চিল নায়েক, তাঁতিয়া ভিল, হিরীয়া, শিউরাম প্রমুখ।

৭৬) সন্ন্যাসী ফকির বিদ্রোহ কবে সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1763- 1800 খ্রিস্টাব্দে।

৭৭) কবে এবং কোথায় প্রথম সন্ন্যাসী বিদ্রোহের সূচনা হয়?

Ans: 1763 খ্রিস্টাব্দে, ঢাকায়।

৭৮) সন্ন্যাসী বিদ্রোহের প্রধান প্রধান কেন্দ্রগুলির নাম লেখ।

Ans: ঢাকা, মালদহ, দিনাজপুর, রংপুর, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, কোচবিহার প্রভৃতি।

৭৯) সন্ন্যাসী ফকির বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ।

Ans: ভবানী পাঠক, দেবী চৌধুরানী, মজনু শাহ, মুসা শাহ, পরাগল শাহ, চিরাগ আলী প্রমুখ।

৮০)বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের কোন কোন উপন্যাসে সন্ন্যাসী ফকির বিদ্রোহের বিবরণ আছে?

Ans: আনন্দমঠ ও দেবী চৌধুরানী উপন্যাসে।

৮১)পাগলাপন্থী বিদ্রোহ কবে কোথায় সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1825-27 খ্রিস্টাব্দে, ময়মনসিংহ জেলার শেরপুরে।

৮২) পাগলা পন্থার প্রতিষ্ঠাতা কে?

Ans: ফকির করম শাহ।

৮৩) পাগলাপন্থী বিদ্রোহের দুজন নেতার নাম লেখ।

Ans: ফকির করম শাহ ও তাঁর পুত্র টিপু।

৮৪)পাবনার কৃষক বিদ্রোহ কবে কোথায় সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1870 খ্রিস্টাব্দে, পাবনা জেলার ইউসুফশাহী পরগনার সিরাজগঞ্জে।

৮৫) পাবনা রায়ত সমিতি কবে কারা গঠন করেন?

Ans: 1873 খ্রিস্টাব্দে,পাবনার পাট চাষিরা।

৮৬) পাবনার কৃষক বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ।

Ans: ঈশান চন্দ্র রায়, ক্ষুদি মোল্লা ও শম্ভুনাথ পাল।

৮৭) বিদ্রোহী রাজা কাকে বলা হয়?

Ans: পাবনার কৃষক বিদ্রোহের নেতা ঈশান চন্দ্র রায় কে।

৮৮) কৃষ্ণদেব রায় কোথাকার জমিদার ছিলেন?

Ans: পুড়ার।

৮৯) ভারতে কে ফরাজি আন্দোলনের সূচনা করেন?

Ans: হাজী শরীয়াতুল্লাহ।

৯০) ফরাজি আন্দোলন কবে সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1818-1906 খ্রিস্টাব্দে।

৯১)”ফরাজী” শব্দের অর্থ কি?

Ans: ইসলাম নির্দিষ্ট বাধ্যতামূলক কর্তব্য।

৯২)ভারতে ফরাজি আন্দোলনের কয়েকজন নেতার নাম লেখ।

Ans: হাজী শরীয়াতুল্লাহ, দুধু মিঞা (মহম্মদ মহসিন),নোয়া মিঞা।

৯৩) ফরাজি আন্দোলনের বা দুদু মিঞার প্রধান কার্যালয় কোথায় ছিল?

Ans: বাহাদুরপুর।

৯৪)কোন কোন স্থানে ফরাজি আন্দোলন বিস্তার লাভ করেছিল?

Ans: ময়মনসিংহ, বাহাদুরপুর, বিক্রমপুর, যশোর, ত্রিপুরা, নদিয়া দক্ষিণ 24 পরগনা।

৯৫) ব্রিটিশ শাসনাধীন ভারতবর্ষকে কে দার-উল-হার্ব বলেছেন?

Ans: হাজী শরীয়াতুল্লাহ।

৯৬)”দার-উল-হার্ব” শব্দের অর্থ কি?

Ans: বিধর্মীর দেশ বা শত্রুর দেশ।

৯৭) দার-উল-ইসলাম শব্দের অর্থ কি?

Ans: ইসলামের পবিত্র ভূমি।

৯৮)অষ্টাদশ শতকে কে প্রথম ওয়াহাবি আন্দোলনের সূচনা করেন?

Ans: আব্দুল ওয়াহাব।

৯৯) ভারতে কে ওয়াহাবি আন্দোলনের সূচনা করেন?

Ans: হাজী ওয়ালীউল্লাহ ও তাঁর পুত্র আজিজ।

১০০)”ওয়াহাবী” শব্দের অর্থ কি?

Ans: নবজাগরণ বা পুনরুজ্জীবন।

১০১)ভারতে ওয়াহাবি আন্দোলনের প্রকৃত প্রতিষ্ঠাতা কাকে বলা হয়?

Ans: রায়বেরেলির সৈয়দ আহমেদ।

১০২)ভারতে ওয়াহাবি আন্দোলনের প্রধান কেন্দ্র কোথায় ছিল?

Ans: উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের সিতানা।

১০৩) ভারতে ওয়াহাবি আন্দোলনের কয়েকজন নেতার নাম লেখ?

Ans: হাজী ওয়ালীউল্লাহ ও তাঁর পুত্র আজিজ, সৈয়দ আহমেদ, এনায়েত আলী, কেরামত আলী, তিতুমীর প্রমুখ।

১০৪)”পবিত্র কোরানে ফিরে যাও”-কে বলেছিলেন?

Ans: রায়বেরেলির সৈয়দ আহমেদ।

১০৫)”তরিকা-ই-মহম্মদীয়া” শব্দের অর্থ কি?

Ans: মহম্মদ নির্দেশিত পথ।

১০৬) কবে এবং কোন যুদ্ধে রায়বেরেলীর সৈয়দ আহমেদের মৃত্যু হয়?

Ans: 1831 খ্রিস্টাব্দে, বালাকোটের যুদ্ধ।

১০৭) বাংলার ওয়াহাবি আন্দোলনের প্রধান নেতা কে ছিলেন?

Ans: তিতুমীর।

১০৮) তিতুমীরের প্রকৃত নাম কি?

Ans: মীর নিসার আলী।

১০৯)তিতুমীরের নেতৃত্বে কবে বাংলায় ওয়াহাবি আন্দোলন সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1822-31 খ্রিস্টাব্দে।

১১০) বাংলায় ওয়াহাবি আন্দোলনের প্রধান কেন্দ্র কোথায় ছিল?

Ans: দক্ষিণ 24 পরগনার বারাসাত।

১১১) তিতুমীরের নেতৃত্বে পরিচালিত বাংলার ওয়াহাবি আন্দোলন আর কি কি নামে পরিচিত?

Ans: তরিকা-ই-মহম্মদীয়া ও বারাসাত বিদ্রোহ।

১১২)”তরিকা” শব্দের অর্থ কি?

Ans: পথ।

১১৩)”জেহাদ” শব্দের অর্থ কি?

Ans: ধর্মযুদ্ধ।

১১৪) তিতুমীর কোথায় বাঁশের কেল্লা নির্মাণ করেন?

Ans: 24 পরগনার নারকেলবেরিয়া গ্রামে।

১১৫) তিতুমীরের সেনাপতির নাম কি?

Ans: গোলাম মাসুম।

১১৬) তিতুমীরের প্রধানমন্ত্রীর নাম কী?

Ans: মৈনুদ্দিন।

১১৭) কবে তিতুমীরের মৃত্যু হয়?

Ans: 1831 খ্রিস্টাব্দের 19 নভেম্বর।

১১৮) নীল বিদ্রোহ কবে সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1859 খ্রিস্টাব্দে।

১১৯) বাংলায় কে এবং কবে প্রথম নীল চাষের উদ্যোগ নেন?

Ans: 1777 খ্রিস্টাব্দে, লুই বোনার্ড নামক এক ফরাসি বণিক।

১২০) ভারতে কে প্রথম নীল শিল্প গড়ে তোলেন?

Ans: কার্ল ব্লুম।(হুগলিতে)

১২১)বাংলাদেশের একটি নীল উৎপাদনকারী সংস্থার নাম লেখ।

Ans: বেঙ্গল ইন্ডিগো কোম্পানি।

১২২) কোন আইনের দ্বারা ভারতে নীলচাষে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির একচেটিয়া অধিকার লুপ্ত হয়?

Ans: 1833 খ্রিস্টাব্দে সনদ আইনে।

১২৩) কোন কোন পত্রিকায় নীলকরদের অত্যাচারের ঘটনা লেখা হতো?

Ans: হিন্দু প্যাট্রিয়ট, তত্ত্ববোধিনী পত্রিকা, সমাচার দর্পণ, ক্যালকাটা রিভিউ পত্রিকা ইত্যাদি।

১২৪) কাকে নীল চাষির বন্ধু বলা হয়?

Ans: হরিশচন্দ্র মুখোপাধ্যায়।

১২৫) কোথায় প্রথম নীল বিদ্রোহের সূচনা হয়?

Ans: নদিয়ার কৃষ্ণনগরের চৌগাছা গ্রামে।

১২৬) পঞ্চম ও সপ্তম আইন কবে কেন পাশ করা হয়?

Ans: 1830 খ্রিস্টাব্দে, নীলকরদের স্বার্থ রক্ষার্থে।

১২৭) কে কবে পঞ্চম আইন বাতিল করে দেন?

Ans: 1835 খ্রিস্টাব্দে,লর্ড উইলিয়াম বেন্টিঙ্ক।

১২৮) কাকে বাংলার রবিন হুড বলা হয়?

Ans: বিশ্বনাথ সর্দার।

১২৯)কে বাংলার ইতিহাসে বিশেষ ডাকাত নামে পরিচিত?

Ans: বিশ্বনাথ সর্দার।

১৩০) কবে এবং কার উদ্যোগে নীল কমিশন গঠিত হয়?

Ans: 1860 খ্রিস্টাব্দে বাংলার ছোটলাট জে.পি গ্রান্টের উদ্যোগে।

১৩১)1860 খ্রিস্টাব্দে গঠিত নীল কমিশনের সদস্য কতজন ছিলেন?

Ans: পাঁচজন।

১৩২) বাংলার নানাসাহেব কাকে বলা হয়?

Ans: রামরতন মল্লিক।

১৩৩) নীল বিদ্রোহের কয়েকজন নেতার নাম লেখ?

Ans: দিগম্বর বিশ্বাস, বিষ্ণুচরন বিশ্বাস, রফিক মন্ডল, কাদের মোল্লা, বিশ্বনাথ সর্দার, বৈদ্যনাথ সর্দার, মেঘাই সর্দার, রাম রতন মল্লিক, শ্রী গোপাল পালচৌধুরী, শ্রী হরি রায়, মথুরানাথ আচার্য প্রমূখ।

১৩৫) বাংলার ওয়াট টাইলার কাদের বলা হয়?

Ans: দিগম্বর বিশ্বাস ও বিষ্ণুচরন বিশ্বাস।

১৩৬) রাজা দুর্জন সিংহ কোন বিদ্রোহের নেতা ছিলেন?

Ans: চুয়াড় বিদ্রোহের।

১৩৭) ভারতের প্রথম ইন্সপেক্টর জেনারেল কে ছিলেন?

Ans: ড্রেইডিক ব্রান্ডিস।

১৩৮) সাঁওতাল বিদ্রোহকে কে নিম্ন শ্রেণীর গণবিদ্রোহ বলে অভিহিত করেছেন?

Ans: অধ্যাপক নরহরি কবিরাজ।

১৩৯) কৃত্রিম নীল কবে আবিষ্কার হয়?

Ans: 1898 খ্রিস্টাব্দে।

১৪০) দাদন শব্দের অর্থ কি?

Ans: অগ্রিম।

১৪১) বঙ্গীয় প্রজাস্বত্ব আইন কবে পাস হয়?

Ans: 1885 খ্রিস্টাব্দে।

১৪১) রুম্পা বিদ্রোহ কোথায় হয়েছিল?

Ans: অন্ধ্রের গোদাবরী উপত্যাকায়।

১৪২) রুম্পা বিদ্রোহের প্রধান নেতা কে ছিলেন?

Ans: আল্লুরি সীতারাম রাজু।

১৪৩)M.L.L কার ছদ্মনাম?

Ans: শিশির কুমার ঘোষ।

১৪৪) মুন্ডা অধ্যুষিত অঞ্চলে জঙ্গল পরিষ্কার করে তৈরি জমিকে কি বলা হত?

Ans: ভুঁইহারি।

১৪৫) মুন্ডা অধ্যুষিত অঞ্চলে জমিদারদের খাস জমিকে কি বলা হত?

Ans: মাঝিহাম।

১৪৬) জার্মান কৃষিবিদ ভয়েলকার কবে ভারতে এসেছিলেন?

Ans: 1894 খ্রিস্টাব্দে।

১৪৭)সাঁওতালদের কাছ থেকে দ্রব্য কেনার সময় মহাজনদের ব্যবহৃত বেশি ওজনের বাটখারার নাম কি ছিল?

Ans: কেনারাম।

১৪৮)সাঁওতালদের দ্রব্য বিক্রির সময় মহাজনদের ব্যবহৃত কম ওজনের বাটখারা নাম কি ছিল?

Ans: বেচারাম।

১৪৯) হো বিদ্রোহ কবে কোথায় সংঘটিত হয়েছিল?

Ans: 1821 খ্রিস্টাব্দে ছোটনাগপুরের সিংভূম অঞ্চলে।

১৫০) কুকা বিদ্রোহের প্রধান নেতা কে ছিলেন?

Ans: গুরু রাম সিং।

Leave a Comment