ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ফল উৎপাদনে বিখ্যাত কেন?

ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ফল উৎপাদনে বিখ্যাত কেন?: উচ্চ মাধ্যমিক ভূগোলের এক অতি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন হল ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ফল উৎপাদনে বিখ্যাত কেন। ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ফল উৎপাদনে বিখ্যাত হওয়ার  হওয়ার কারণ গুলি সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ফল উৎপাদনে উন্নতির কারণ – ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ফল চাষে খুবই উন্নত, এই অঞ্চলে ব্যাপক হারে আঙুর, জলপাই, কমলালেবু, ডুমুর প্রভৃতই চাষ করা হয়। এই সব ফল টক বা মিষ্টি প্রকৃতির। অনেকে এই অঞ্চল কে পৃথিবীর ফলের ঝুড়ি বলে। এখানে ফল চাষের উন্নতির কারণ গুলি হল – 

I) অনুকূল জলবায়ু – 15 ডিগ্রি সেলসিয়াস এর কাছাকাছি উষ্ণতা, 50 সেমির মতো বৃষ্টিপাত, নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ু এবং বৃষ্টি বহুল শীতকাল ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে ফল চাষের পক্ষে আদর্শ। এই প্রকৃতি র জলবায়ুতে কমলালেবু, আঙুর, ন্যাসপাতি, স্ত্রবেরি প্রভৃতি চাষ করা হয়। ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর দীর্ঘ খরার হাত থেকে বাঁচতে এই অঞ্চলের গাছের ফল গুলি রস পূর্ণ হয়ে থাকে। 

II) মাদক জাতীয় পানীয়ের চাহিদা – ভূমধ্যসাগরীয় ও তার পার্শ্ববর্তী শীতল নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলের অধিবাসীদের প্রতিদিনের জীবনযাপনে সূরা জাতীয় পানীয়ের চাহিদা প্রচুর। তাই সূরা উৎপাদনে জন্য আঙুর চাষ অত্যন্ত জনপ্রিয়। এই অঞ্চলে উৎপাদিত আঙুর থেকে বিশ্ব বিখ্যাত সুরা উৎপাদন করা হয়ে থাকে। যেমন – ফ্রান্সে শ্যাম্পেন, বাগেন্ডী, স্পেনে সেরি প্রভৃতি। 

III) বিশ্ব ব্যাপী চাহিদা – এই অঞ্চলের আঙুর থেকে বিশ্ব বিখ্যাত সুরা গুলির আন্তর্জাতিক চাহিদা প্রচুর, তাই এখানকার কৃষক রা ফল চাষে উৎসাহী হয়ে থাকে। 

প্রধানত ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের অনুকূল জলবায়ু এই অঞ্চল কে ফল চাষের আদর্শ পটভূমিতে পরিণত করেছে। 

Leave a Comment