অষ্টম শ্রেণি ভূগোল মারে-ডার্লিং অববাহিকা অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর

অষ্টম শ্রেণি ভূগোল মারে-ডার্লিং অববাহিকা অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর PDF: প্রতিবছর অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষায় Murray-Darling Basin Questions and Answers PDF থেকে অনেক প্রশ্ন আসে। তাই আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি মারে-ডার্লিং অববাহিকা অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর PDF.

নিচে Murray-Darling Basin Questions and Answers PDF টি যত্নসহকারে পড়ুন ও জ্ঞানভাণ্ডার বৃদ্ধি করুন। মারে-ডার্লিং অববাহিকা অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর PDF টি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে এই পোস্টটির নীচে যান এবং ডাউনলোড করুন।

প্রশ্নউত্তর
১) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কাকে বলে?অষ্ট্রেলিয়ার পূর্বে গ্রেট ডিভাইডিং রেঞ্চ ও পশ্চিমের মালভূমি অঞ্চলের মধ্যভাগে অবস্থিত সমভূমির দক্ষিণাংশে মারে ও তার উপনদী ডার্লিং দীর্ঘদিন ধরে পলি সঞ্চয়ের দ্বারা যে সমভূমি গঠন করেছে, তাকে মারে-ডার্লিং অববাহিকা বলে।
২) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কোন দেশে অবস্থিত?অষ্ট্রেলিয়া।
৩) মারে-ডার্লিং অববাহিকা অষ্ট্রেলিয়ার কোন দিকে অবস্থিত?দক্ষিণ-পূর্ব দিকে।
৪) মারে-ডার্লিং অববাহিকার অক্ষাংশগত ও দ্রাঘিমাংশগত বিস্তারঅষ্ট্রেলিয়ার মারে-ডার্লিং অববাহিকা ২৪° দক্ষিণ অক্ষাংশ থেকে ৩৯° দক্ষিণ অক্ষাংশ পর্যন্ত এবং ১৩৮° পূর্ব দ্রাঘিমাংশ থেকে ১৪৯° পূর্ব দ্রাঘিমাংশ মধ্যে বিস্তৃত।
৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকা সীমানামারে-ডার্লিং অববাহিকার উত্তর ও পূর্ব দিকে গ্রেট ডিভাইডিং রেঞ্চ, পশ্চিমে লফটি রেঞ্চ, ব্যারিয়ার রেঞ্চ, গ্রে রেঞ্চ এবং দক্ষিণ দিকে গ্রেট অষ্ট্রেলিয়ান বাইট অবস্থান করছে।
৬) অষ্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ন অঞ্চলের নামমারে-ডার্লিং অববাহিকা।
৭) মারে-ডার্লিং অববাহিকা অষ্ট্রেলিয়ার কতভাগ স্থান জুড়ে অবস্থান করছে?২০ ভাগ।
৮) মারে-ডার্লিং অববাহিকার ভূ-প্রকৃতিনিম্ন সমতলভূমি।
৯) মারে-ডার্লিং অববাহিকার ভূ-প্রকৃতি কীভাবে সৃষ্টি হয়েছে?দীর্ঘদিন ধরে নদীবাহিত পলি সঞ্চিত হয়ে মারে-ডার্লিং অববাহিকা সৃষ্টি হয়েছে।
১০) মারে-ডার্লিং অববাহিকার গড় উচ্চতা১০০-২০০মিটার।
১১) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কোন দিক থেকে কোন দিকে উঁচু?মারে-ডার্লিং অববাহিকা মধ্যভাগ থেকে ক্রমশ পশ্চিম ও পূর্ব দিকে উঁচু।
১২) মারে-ডার্লিং অববাহিকার প্রধান নদীর নামমারে-ডার্লিং।
১৩) মারে নদীর প্রধান উপনদীর নামডার্লিং।
১৪) মারে-ডার্লিং নদী কোন উপসাগরে পড়েছে?এনকাউন্টার উপসাগর ।
১৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কোন দিক থেকে কোন দিকে ঢালু?দক্ষিণ-পশ্চিম।
১৬) মারে নদীর প্রধান উপনদীর নামডার্লিং।
১৭) মারে নদীর দৈর্ঘ্যপ্রায় ২৫৮৯ কিমি।
১৮) মারে-ডার্লিং অববাহিকার কয়েকটি উপনদীর নামপারু, বারোন, ওয়ারেগো।
১৯) ডার্লিং নদীর প্রধান উপনদীর নামপারু, বারোন, ওয়ারেগো।
২০) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কোন দিক থেকে কোন দিকে উুঁচু?দক্ষিণ-পশ্চিম।
২১) মারে নদীর উৎপত্তি লাভ করেছে?অষ্ট্রেলিয়ান আল্পস পর্বত থেকে।
২২) মারে নদীর দৈর্ঘ্যপ্রায় ১১৬৩ কিমি।
২৩) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় কোন কোন শহরের কাছে মিলিত হয়েছে?ওয়েন্টওয়ার্থ শহরের কাছে।
২৪) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় জলবায়ু কী ধরণের?নাতিশীতোষ্ণ প্রকৃতির।
২৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকার গ্রীষ্মকালীন গড় তাপমাত্রা২৫ ডিগ্রী সেন্টগ্রেড।
২৬) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণমাত্র ৫০-৭৫ সেমি।
২৬) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম কেন?গ্রেট ডিভাইডিং রেঞ্জের পশ্চিমে বৃষ্টিচ্ছায় অঞ্চলে অবস্থিত বলে মারে-ডার্লিং অববাহিকায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম।
২৭) মারে-ডার্লিং অববাহিকার কোথায় ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ুর প্রভাব দেখা যায়?দক্ষিণের সমুদ্র উপকূলে।
২৮) ডাউনস কী?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ু এবং কম বৃষ্টিপাতের জন্য যে তৃণভূমি সৃষ্টি হয়েছে তাকে ডাউনস বলে।
২৯) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় কী কী ফসল উৎপাদন করা হয়?উন্নত যন্ত্রপাতির সাহায্যে অস্ট্রেলিয়ার মারে-ডার্লিং অববাহিকায় গম, যব, ভুট্টা, রাই ইত্যাদি ফসল উৎপাদিত হয় এবং দক্ষিণের ভূমধ্যসাগরীয় জলবায়ু অঞ্চলে আঙ্গুর, আপেল, লেবু, পিচ, কমলালেবু, ন্যাশপাতি ইত্যাদি ফল চাষ করা হয়।
৩০) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় কোন কোন শিল্প গড়ে উঠেছে?কৃষিজ ও প্রাণিজ সম্পদের নির্ভর করে মারে -ডার্লিং অববাহিকায় পশম বয়ন, বস্ত্র বয়ন, ডেয়ারি, মদ, ময়দা, বেকারি, মাংস প্রক্রিয়াকরণ এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও রাসায়নিক উৎপাদন ইত্যাদি কৃষি-উদ্যোগে অধিক উদ্যোগ আবিষ্কৃত হয়েছে।
৩১) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কোন মুখ্য সমস্যা মোকাবেলা করছে?কৃষি উৎপাদনের সাথে সাথে মারে-ডার্লিং অববাহিকা মোট জল সঞ্চয় হ্রাস পেতে থাকে যা কৃষকদের জীবনধারা ও আবেগে ব্যাপক প্রভাব ফেলে। আরও মোট জল সঞ্চয় নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে স্থানীয় জনগণের সাথে সংঘর্ষ সহ বিভিন্ন পরিবেশমন্ত্রণী উপায়ে মারে-ডার্লিং অববাহিকা নিয়ন্ত্রণ বাড়ানো সম্ভব হয়নি।
৩২) মারে-ডার্লিং অববাহিকার যে জানোয়ার বিভাগ সবচেয়ে বেশি দ্রাঘিমাংশ সম্পর্কিতবৈদ্যুতিন শক্তি উৎপাদন।
৩৩) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় কোন প্রকারের প্রাণি পাওয়া যায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় বিশাল সংখ্যক প্রাণি পাওয়া যায়, যেমন ঘুড়সে, কাংকাল, মাছের বংশ, উপসাগরের পাহাড়ী সিংহ, ভালুক, গুড়িপানা, মোর ইত্যাদি।
৩৪) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় কোন প্রকারের ফুল পাওয়া যায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় বিশেষ প্রকারের ফুল, যেমন ব্যাঙ্ক্সিয়াগো সালতান এবং প্রশস্ত সংখ্যক উদ্ভিদ পাওয়া যায়।
৩৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় কোন ধরণের পানি বয়ে যায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় শুষক আদিকে বিস্তৃত সংখ্যক হ্রাস জনিত পানি বয়ে যায়।
৩৬) মারে-ডার্লিং অববাহিকায় কোন ধরণের জল বয়ে যায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় সমপূর্ণ সূক্ষ্ম জল বয়ে যায়, যা মুখ্যভাবে মৃত বা জীবিত জন্তুসংস্কারের জন্য আপেক্ষিকভাবে ব্যবহৃত হয় এবং স্থানীয় জীবজন্তুগুলির জন্য এটি মুখ্য পানিরূপে উপলব্ধ থাকে।
৩৭) মারে-ডার্লিং অববাহিকার বৈশিষ্ট্যপূর্ণ উপকূল স্থানে কোন প্রকার পানি বয়ে যায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকার বৈশিষ্ট্যপূর্ণ উপকূল স্থানে হারহত জলবায়ু দেখা যায়, যে অঞ্চলে সর্দি এবং গ্রীষ্মকালে সাম্প্রতিক বৃষ্টি হয় এবং তীব্র গ্রীষ্মকালে উষ্ণতা বা উষ্ণতার বাড়া পেতে পারে।
৩৮) মারে-ডার্লিং অববাহিকার পূর্ব ও পশ্চিম পার্টে কোন প্রকার জলবায়ু দেখা যায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকার পূর্ব ও পশ্চিম পার্টে বৃষ্টি পর্যাপ্তই হয় না, এবং উষ্ণতা অত্যন্ত বেড়ে থাকে। পূর্ব পার্টে অধিক তীব্র গ্রীষ্মকাল প্রবৃদ্ধি হয়।
৩৯) মারে-ডার্লিং অববাহিকার বহুত্বপূর্ণ উপনদীর নামক্যাসকাডিআউন্ট, গুন্নেজ এবং ডার্লিং।
৪০) মারে-ডার্লিং অববাহিকার মোট উপনদী সংখ্যাপ্রায় ২১৪।
৪১) মারে-ডার্লিং অববাহিকা কোন উপসাগরে পড়েছে?এনকাউন্টার উপসাগর।
৪২) মারে-ডার্লিং অববাহিকার যে অংশে মৌসুম গুলি প্রাপ্ত হয়পূর্ব ও পশ্চিম ভারতের ত্রিভুজ অঞ্চলে বর্ষা বা মৌসুম গুলি প্রাপ্ত হয়।
৪৩) মারে-ডার্লিং অববাহিকার যে প্রকার মৌসুম গুলি প্রাপ্ত হয়মারে-ডার্লিং অববাহিকায় আসোমদান, সদ্যঃ উৎপত্তি বক্রী বা সময়েত উৎপত্তি বক্রী এবং প্রবাদ আসোম সহ তিন প্রকার মৌসুম গুলি প্রাপ্ত হয়।
৪৪) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের চাষ বেশি হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় সুস্থ যন্ত্রপাতি সৃষ্টি করে এবং পানি সরবরাহ করে, এই কারণে এলাকার কৃষকরা ব্যাপক পরিমানে বয়সাকবধান, গম, যব, ভুট্টা, রাই ইত্যাদি ফসল চাষ করে।
৪৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় কোন ধরণের জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৪৬) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের ভাষা বলা হয়?বৃষ্টি, যবে এবং রাইত বৃষ্টিমূলক গতিবিদ্যা বলা হয়।
৪৭) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় কোন ধরণের শিকার খেতে পায়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় অনেক ধরণের শিকার পাওয়া যায়, যেমন ঘুড়সে, বাঘ, কাংকাল, ভালুক, বিশেষ ধরণের মাছ ইত্যাদি।
৪৮) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের মৌসুম দেখা যায়?বৃষ্টি এবং গ্রীষ্মকালে খুবই উষ্ণ হয় যা মানুষের জীবনধারা ও কৃষির জন্য ব্যাপক প্রভাব ফেলে।
৪৯) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় আসোমদান, সদ্যঃ উৎপত্তি বক্রী বা সময়েত উৎপত্তি বক্রী এবং প্রবাদ এই তিন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়।
৫০) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জল সঞ্চয় দেখা যায় তা কোন সময়ে কম হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় বৃষ্টি পর্যাপ্ত হয় না, তবে এলাকার জনসংখ্যা সর্বাধিক হয়, এই কারণে মোট জল সঞ্চয় নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে স্থানীয় জনগণের সাথে সংঘর্ষ হতে পারে।
৫১) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় যে প্রকার জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৫২) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় কোন ধরণের চাষ বেশি হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় সুস্থ যন্ত্রপাতি সৃষ্টি করে এবং পানি সরবরাহ করে, এই কারণে এলাকার কৃষকরা ব্যাপক পরিমানে বয়সাকবধান, গম, যব, ভুট্টা, রাই ইত্যাদি ফসল চাষ করে।
৫৩) মারে-ডার্লিং অববাহিকা এলাকায় কোন ধরণের জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৫৪) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের জলবায়ু দেখা যায়?বৃষ্টি এবং গ্রীষ্মকালে খুবই উষ্ণ হয় যা মানুষের জীবনধারা ও কৃষির জন্য ব্যাপক প্রভাব ফেলে।
৫৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় আসোমদান, সদ্যঃ উৎপত্তি বক্রী বা সময়েত উৎপত্তি বক্রী এবং প্রবাদ এই তিন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়।
৫৬) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জল সঞ্চয় দেখা যায় তা কোন সময়ে কম হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় বৃষ্টি পর্যাপ্ত হয় না, তবে এলাকার জনসংখ্যা সর্বাধিক হয়, এই কারণে মোট জল সঞ্চয় নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে স্থানীয় জনগণের সাথে সংঘর্ষ হতে পারে।
৫৭) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৫৮) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের চাষ বেশি হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় সুস্থ যন্ত্রপাতি সৃষ্টি করে এবং পানি সরবরাহ করে, এই কারণে এলাকার কৃষকরা ব্যাপক পরিমানে বয়সাকবধান, গম, যব, ভুট্টা, রাই ইত্যাদি ফসল চাষ করে।
৫৯) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জল সঞ্চয় দেখা যায় তা কোন সময়ে কম হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় বৃষ্টি পর্যাপ্ত হয় না, তবে এলাকার জনসংখ্যা সর্বাধিক হয়, এই কারণে মোট জল সঞ্চয় নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে স্থানীয় জনগণের সাথে সংঘর্ষ হতে পারে।
৬০) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৬১) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় আসোমদান, সদ্যঃ উৎপত্তি বক্রী বা সময়েত উৎপত্তি বক্রী এবং প্রবাদ এই তিন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়।
৬২) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জল সঞ্চয় দেখা যায় তা কোন সময়ে কম হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় বৃষ্টি পর্যাপ্ত হয় না, তবে এলাকার জনসংখ্যা সর্বাধিক হয়, এই কারণে মোট জল সঞ্চয় নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে স্থানীয় জনগণের সাথে সংঘর্ষ হতে পারে।
৬৩) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৬৪) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের চাষ বেশি হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় সুস্থ যন্ত্রপাতি সৃষ্টি করে এবং পানি সরবরাহ করে, এই কারণে এলাকার কৃষকরা ব্যাপক পরিমানে বয়সাকবধান, গম, যব, ভুট্টা, রাই ইত্যাদি ফসল চাষ করে।
৬৫) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৬৬) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের জলবায়ু দেখা যায়?বৃষ্টি এবং গ্রীষ্মকালে খুবই উষ্ণ হয় যা মানুষের জীবনধারা ও কৃষির জন্য ব্যাপক প্রভাব ফেলে।
৬৭) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় আসোমদান, সদ্যঃ উৎপত্তি বক্রী বা সময়েত উৎপত্তি বক্রী এবং প্রবাদ এই তিন ধরণের বৃষ্টি প্রাপ্ত হয়।
৬৮) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।
৬৯) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় কোন ধরণের চাষ বেশি হয়?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় সুস্থ যন্ত্রপাতি সৃষ্টি করে এবং পানি সরবরাহ করে, এই কারণে এলাকার কৃষকরা ব্যাপক পরিমানে বয়সাকবধান, গম, যব, ভুট্টা, রাই ইত্যাদি ফসল চাষ করে।
৭০) মারে-ডার্লিং অববাহিকার এলাকায় যে জনসংখ্যা বেশি?মারে-ডার্লিং অববাহিকায় উচ্চ জনসংখ্যা পাওয়া যায়।

Leave a Comment