ভারতীয় কৃষির সমস্যাগুলি কী কী?

ভারতীয় কৃষির সমস্যাগুলি কী কী?: ভারতে কৃষির ইতিহাস সুপ্রাচীন। প্রায় দশ হাজার বছর আগে এই ভূখণ্ডে কৃষিকাজের সূচনা হয়। বর্তমানে ভারত কৃষি উৎপাদনে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানের অধিকারী। ২০০৭ সালের হিসেব অনুযায়ী, দেশের জিডিপি-তে কৃষি এবং বনবিদ্যা, কাষ্ঠশিল্প ইত্যাদি কৃষি-সহায়ক ক্ষেত্রগুলির অবদান ১৬.৬ শতাংশ। ভারতের মোট শ্রমশক্তির ৫২ শতাংশই এই ক্ষেত্রে নিযুক্ত। জিডিপি-তে কৃষিক্ষেত্রের অবদান বর্তমানে অনেকটা কমলেও, এই ক্ষেত্র আজও ভারতের বৃহত্তম অর্থনৈতিক ক্ষেত্র এবং দেশের সামগ্রিক আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানের অধিকারী।

দুগ্ধ, কাজুবাদাম, নারকেল, চা,পাট, আদা, হরিদ্রা ও কালো মরিচ,আম, লেবু,পেঁপে,ফুলকপি, উৎপাদনে ভারতের স্থান বিশ্বে প্রথম। কফি উৎপাদনে ভারতের স্থান বিশ্বে ষষ্ঠ। গবাদি পশুর সংখ্যার হিসেবেও ভারতের স্থান বিশ্বে প্রথম (২৮১,০০০,০০০)। গম, ধান, আখ, চিনাবাদাম,পেঁয়াজ ও অন্তর্দেশীয় মৎস্য উৎপাদনে ভারতের স্থান বিশ্বে দ্বিতীয়। তামাক উৎপাদনে ভারতের স্থান বিশ্বে তৃতীয়। বিশ্বের মোট উৎপাদিত ফলের ১০ শতাংশ ভারতে উৎপাদিত হয়। কলা ও সাপোটা উৎপাদনে ভারতের স্থান বিশ্বে প্রথম।

ভারতীয় অর্থনীতিতে কৃষির গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা সত্ত্বেও ভারতীয় কৃষি নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত। ভারতীয় কৃষির সমস্যা গুলি সম্পর্কে নিম্নে আলোচনা করা হল –

১. অত্যাধিক প্রকৃতি নির্ভরতা – ভারতীয় কৃষি অত্যাধিক প্রকৃতি নির্ভর । দেশে জলসেচের প্রসার সত্ত্বেও এখনও ভারতের সর্বত্র সেচের সুযোগ পৌছে দেওয়া সম্ভব হয়নি। ফলে চাষের জন্য কৃষকেরা বৃষ্টির জন্য নির্ভর করে। কিন্তু দঃ – পশ্চিম মৌসুমি বায়ু অনিশ্চয়তায় ভরা। তাই অতি বৃষ্টির দরুন বন্যা এবং অনাবৃষ্টির দরুন খরার সৃষ্টি হয়। যা ফসল উৎপাদনে বাধার সৃষ্টি করে। 

২. ক্ষুদ্রায়তন কৃষিজোত – ভারতের কৃষি জোত গুলি আয়তনে ছোটো। তাই আধুনিক বড়ো যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা সম্ভব হয় না বলে কৃষির আধুনিকীকরন করা সম্ভব হয়নি। ফলে উৎপাদনের পরিমান কম হয়।

৩. জমির অসম বন্টন – ভারতের কৃষি জমি গুলি সকলের মধ্যে সমান ভাবে বন্টিত নয়। কৃষির অপর নির্ভরশীল অধিকাংশ ব্যক্তির নিজস্ব জমি নেই। 

৪. উন্নত বীজের অভাব – ভারতে উচ্চ ফলনশীল বীজের ব্যবহার প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। সবুজ বিপ্লবের ফলে উন্নত বীজের প্রচলন দেখা গেলেও তা নিদিষ্ট অঞ্চলেই সীমাবদ্ধ ছিল। 

৫. অপ্রতুল জলসেচের সুযোগ – কৃষিতে জলসেচের গুরুত্ব অপরিসীম কিন্তু তা সত্ত্বে ভারতের সকল জমিকে জলসেচ ব্যবস্থার আওতায় আনা সম্ভব হয়নি। ফলে জলসেচের অভাবে এখনও বহু কৃষি জমি ব্যবহার করা সম্ভব হচ্ছে না আবার কোথাও একবার মাত্র ফসল উৎপাদন করা হচ্ছে। 

৬. সীমিত রাসায়নিক সারের ব্যবহার – ভারতে কৃষিজ ফসল উৎপাদনে রাসায়নিক সারের ব্যবহার উন্নত দেশগুলির তুলনায় অনেক কম। 

৭. কৃষকের শিক্ষার অভাব – ভারতের কৃষিকাজে নিযুক্ত বেশির ভাগ কৃষকই অশিক্ষিত । ফলে তারা আধুনিক প্রযুক্তিতে কৃষিকাজ করতে অসমর্থ। 

৮. জীবনধারণের জন্য কৃষিকাজ – ভারতে যে কৃষি ব্যবস্থা তা মূলত জীবন ধারন ভিত্তিক। অর্থাৎ উৎপাদিত ফসলের প্রায় সবটাই খাদ্যের জন্য ব্যবহৃত হয়। বাজারে বিক্রি করার মতো ফসল থাকে না। 

Leave a Comment